মোবাইলে-অনলাইনে-আয়

মোবাইলে অনলাইনে আয় করবেন কিভাবে?

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার জন্য আজকে আমি কয়েকটি উপায় শেয়ার করবো। বর্তমানে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার চাহিদা বেড়েই চলেছে। কারণ স্মার্ট ফোন এখন অনেক আপডেট হয়েগেছে। ইন্টারনেটে টাকা ইনকাম করার জন্য বিভিন্ন উপায় রয়েছে যার মধ্যে অন্যতম মোবাইলে অনলাইনে আয়। সবাই এখন কম-বেশি স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে।

স্বাধীন ভাবে ঘরে বসে টাকা আয় করার জন্য মানুষ এখন অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোতে প্রবেশ করে থাকে। বিভিন্ন ধরণের Android Apps আছে যার মাধ্যমে মোবাইলে অনলাইনে আয় করা যায়।

এছাড়া ইউটিউবে আয় বা ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করার জন্য মোবাইলের সহযোগিতা নিতে পারেন। ইউটিউব থেকে ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম করা যায় আর ওয়েবসাইটে টাইপ করে ইনকাম করা যায় খুব সহজে। আমরা অনেকেই চাই অনলাইন ইনকাম করতে কিন্তু অনেকে মনে করেন যে কম্পিউটার ছাড়া অনলাইনে আয় করা যায় না কিন্তু এটা আপনার ভুল ধারনা।

ইন্টারনেট থেকে টাকা কামানোর জন্য প্রয়োজন ইচ্ছা শক্তি আর ধৈর্য। আপনার কাছে একটি Smart Phone থাকলেই অনলাইনে উপার্জন করা সম্ভব। অনেকে চায় নিজের খরচ নিজেই বহন করতে এর জন্য পার্ট টাইম জব করতে চায় সবাই তাই স্বাধীন ভাবে কাজ করার জন্য মানুষ অনলাইনের দিকে ছুটে চলেছে। এর মধ্যে অনেকে আছে পড়ালেখা করে থাকে, আপনি চাইলে পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করতে পারেন মোবাইলের মাধ্যমে।

আপনি যেকোনো ভাবে অর্থ উপার্জন করতে গেলে পরিশ্রম করতে হবে। অনেকে ইন্টারনেটে বলে থাকে “কোনো পরিশ্রম বা খরচ ছাড়া লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করুন” আর এটা সম্পূর্ণই ভুল।

আরো পড়ুন-

মনে রাখবেন টাকা কোন গাছের পাতা নয়, আপনি চাইলেই কোনো পরিশ্রম ছাড়া অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না। আমরা আপনাকে টাকা আয়ের পথ দেখায় দিতে পারি কিন্তু টাকা ইনকাম করার জন্য পরিশ্রম ও ধৈর্য ধরতে হবে আপনার। মোবাইলে গুগল প্লেস্টোরে বিভিন্ন এপস দিয়ে টাকা আয় করা যায় যেগুলো ফ্রিল্যান্সিং সাইট। বর্তমানে অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট করা যায় যেগুলো ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হচ্ছে।

মোবাইল-দিয়ে-টাকা-আয়

মোবাইলে অনলাইনে আয় করার জন্য সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে ইউটিউব বা ওয়েবসাইট। বেশিরভাগ মানুষ যারা দ্রুত অনলাইনে আয় করতে চায় তারা এই দুটি কাজ করে থাকে। এছাড়া আপনি সার্ভে করে টাকা আয় করতে পারেন বিভিন্ন সাইট থেকে। বিভিন্ন কোম্পানি তদের পণ্যের গুনগত মান যাচাই করার জন্য ভুক্তাদের মাধ্যমে জরিপ চালায় আর এটাকেই বলে সার্ভে।

কোম্পানি গুলো সার্ভে করার জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অর্থ প্রধান করে থাকে আর যারা এই সার্ভে অংশগ্রহণ করে তারা অর্থ উপার্জন করতে পারে। মোবাইলে অনলাইনে আয় করার জন্য আজ আমি বিভিন্ন উপায় শেয়ার করব আপনাদের কাছে।

১/ ইউটিউবে আয়

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার জন্য ইউটিউব সবচেয়ে বেস্ট। একটি স্মার্ট ফোন দিয়ে বিভিন্ন ধরণের ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে আপলোড করার মাধ্যমে অনলাইনে আয় করতে পারবেন। ইউটিউব একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম যা জনপ্রিয় ভিডিও সাইট। এখানে মানুষ ভিডিও আপলোড করতে পারে ও দেখতে পারে।

মোবাইল বা ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে ছেড়ে দিতে পারেন। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে গুগল এডসেন্স এর সহায়তা নিতে হবে। ইউটিউবে মনিটাইজেশন অন করলে আপনার আপলোড করা ভিডিওর মধ্যে বিজ্ঞাপন দেখাবে আর সেই বিজ্ঞাপন থেকে ডলার ইনকাম করা যায়।

ইউটিউবে কখনো কোন কনটেন্ট কপি করে আপলোড করবেন না এতে যেকোনো সময় ইউটিউব থেকে আপনার চ্যানেল বাদ করে দিতে পারে। বর্তমানে তরুণ-তরুণীদের কাছে YouTube একটি সেরা ইনকাম সাইট। এভাবে মোবাইলে অনলাইনে আয় করা যায় খুব সহজেই।

২/ ব্লগ তৈরি করে অনলাইনে আয়

লেখালেখি করে মোবাইলে অনলাইনে আয় করা যায় হাজার হাজার টাকা। এর জন্য আপনার একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে, এখন স্বল্প মূল্যে বাংলাদেশী বিভিন্ন সার্ভার রয়েছে যারা হোস্টিং এবং ডোমেইন বিক্রয় করে থাকে।

মোবাইলে আর্টিকেল লিখে আয় করার জন্য আপনি ইউনিক আর্টিকেল তৈরি করবেন এবং ওয়েবসাইট ভালো করে এসইও করবেন। আপনি যদি বাংলা ব্লগে আয় করতে চান তাহলে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

এছাড়াও বিভিন্ন কোম্পানি থেকে স্পন্সর পাওয়ার মাধ্যমে উপার্জন করতে পারবেন। সবচেয়ে ভালো হয় যদি ইংলিশ আর্টিকেল তৈরি করতে পারেন কারণ এর মাধ্যমে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারবেন খুবই সহজে।

আপনার নিশ সাইটে ভাল মানের ভিজিটর নিয়ে আসতে পারলে গুগল অ্যাডসেন্স দিয়ে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে পারবেন। আর এই কাজ গুলো মোবাইল দিয়েই আপনি করতে পারবেন এর জন্য কোনো কম্পিউটার বা ল্যাপটপের দরকার নেই।

৩/ ফেসবুক থেকে আয়

আপনি মোবাইল দিয়ে ফেসবুকে আয় করতে পারেন খুব সহজেই। ইউটিউবে যেমন বিভিন্ন ভিডিও আপলোড করে মনিটাইজেশন অন করে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারেন ঠিক সে ভাবে এখন ফেসবুকে ইনকাম করা যায়।

ফেসবুক থেকে আয় করার জন্য আপনার একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে হবে এবং ভালো মানের ফলোয়ার তৈর করে নিতে হবে। ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে আয় করার জন্য আপনাকে ফেসবুকের শর্ত গুলো মেনে নিতে হবে এবং মনিটাইজেশন অন করতে হবে। এছাড়া আপনি ফেসবুক পেজ দিয়ে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারবেন খুব সহজে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করা কোনো কঠিন কাজ না যদি ভালো মানের ভিজিটর নিয়ে আসতে পারেন আপনার ওয়েবসাইট বা ফেসবুক পেজে অথবা গ্রুপে। এভাবে আপনি ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয় করতে পারেন শুধু মাত্র একটি ফেসবুক পেজ বা গ্রুপ দিয়ে। তাই ফেসবুকে বাজে সময় নষ্ট না করে ইনকাম করা শুরু করুন।

৪/ Android Apps দিয়ে টাকা আয়

মোবাইলে অনলাইনে আয় করার জন্য অন্যতম একটি উপায় Android Apps দিয়ে টাকা আয়। গুগল প্লে স্টোরে আপনি বিভিন্ন টাকা ইনকাম Apps পাবেন যেগুলো দিয়ে স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে ডলার ইনকাম করা যায়। প্লে স্টোরে কিছু জনপ্রিয় ইনকাম অ্যাপ হচ্ছে Champcash, Google Opinion Rewards ইত্যাদি।

মনে রাখবেন টাকা ইনকাম করার জন্য ধৈর্য ধরতে হয় অনেক আর যারা এপস দিয়ে টাকা আয় করতে চান তাদের একটু বেশি ধৈর্য ধরতে হবে। কারণ মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার জন্য এখনো ভালো মানের কোনো অ্যাপস তৈরি হয়নি। যে অ্যাপ গুলো দিয়ে টাকা আয় করা যায় সেগুলো পরিশ্রমের থেকে অর্থ কম প্রদান করে।

এপস দিয়ে টাকা আয় যদি বেশি করতে চান তাহলে আপনাকে রেফারেল দিয়ে মানুষদের ইনভাইট করতে হবে। আপনি যে অ্যাপ দিয়ে ইনকাম করবেন সেটার মধ্যমে একটি রেফারেল লিংক বা কোড থাকবে যার মাধ্যমে যে আপনার রেফারেল দিয়ে টাকা ইনকাম করা শুরু করবে সেখান থাকে আপনি কমিশন পাবেন।

৫/ সার্ভে করে টাকা আয়

অনলাইনে সার্ভে করে আয় করা যায় মোবাইল দিয়ে। এই কথাটি আপনার কাছে বিশ্বাস নাও হতে পারে কিন্তু এটাই সত্য। প্রযুক্তির উন্নতি হওয়ার সাথে সাথে এখন মোবাইলের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ মানুষ ঘরে বসে টাকা আয় করছে।

কোনো প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্যের গুণগতমান যাচাই করার জন্য একটা জরিপ চালায় আর সেটা হতে যেকোনো মাধ্যমে। যে প্রতিষ্ঠান গুলো অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জরিপ চালায় তারা ওয়েবসাইটের মালিক’কে নির্দিষ্ট পরিমাণে অংক প্রদান করে থাকে। আর যারা সেই ওয়েবসাইট গুলোতে প্রবেশ করে সার্ভেতে জয়েন করে তারা সঠিক উত্তর দিতে পারলে পুরষ্কার লাভ করে।

সার্ভেতে কোম্পানির পণ্য সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্ন করে থাকে আপনি যদি সঠিক উত্তরটি দিতে পারেন তাহলে সেখানে আপনার ইনকাম হবে। প্রতিটি সার্ভে প্রশ্নের উত্তরের জন্য কত পরিমাণ অর্থ প্রদান করা হবে সেটা ঠিক করবে ওয়েবসাইটের মালিক। ইন্টারনেটে আপনি বিভিন্ন ধরণের সার্ভে ওয়েবসাইট পাবেন যেখানে সার্ভে প্রশ্ন করা হয়। কয়েকটি সার্ভে ওয়েবসাইট – SwagBucks.Com, Uk.Toluna.Com, PrizeRebel.Com এবং OnePoll.Com ইত্যাদি।

৬/ লিংক শর্ট করে অনলাইনে আয়

সহজ এই প্রযুক্তির যুগে টাকা উপার্জনের পথ রয়েছে হাজার হাজার যার মধ্যে আমরা কিছুটা জানলেও বাকিটা অজানা। বর্তমানে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার জন্য অন্যতম একটি সহজ উপায় হচ্ছে ইউআরএল শর্ট করে আয়।

আপনি যদি কোনো লিংক কোথাও শেয়ার করতে চান তাহলে ইউআরএল শর্ট করে তারপর করবেন। কারণ এখন লিংক শর্ট করে আয় করা যায়। বিভিন্ন লিংক শর্ট করার ওয়েবসাইট ভিন্ন ভিন্ন ভাবে অর্থ প্রদান করে থাকে। লিংক শর্ট করে কোথাও শেয়ার করলে সেটা দেখতেও সুন্দর দেখায়।

এছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় বড় লিংক শেয়ার করার কোনো সুযোগ থাকে না, তাই ইউআরএল শর্ট করে শেয়ার করতে হয়। যেমন ধরেন আপনি যদি Adf.ly থেকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করে লিংক শর্ট করে শেয়ার করেন তাহলে প্রতি ১ হাজার ভিউতে ১ ডলার করে পাবেন।

এক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের ভিউ রেট কম বেশি হতে পারে। এভাবে আপনি ফেসবুকে লিংক শেয়ার করে ইনকাম করতে পারবেন যদি ফেসবুকে পেজ বা গ্রুপ খুলে হাজার হাজার ফলোয়ার ও মেম্বার তৈরি করতে পারেন। কয়েকটি জনপ্রিয় ইউআরএল শর্ট করে আয় করার ওয়েবসাইট – Adf.ly, LinkShrink.Net, Shorte.St, BC.VC, Adfoc.us, URLCash.Net এবং OUO.IO ইত্যাদি।

মোবাইলে অনলাইনে আয় নিয়ে সর্বশেষ কথা,

আশা করি আপনি যদি উপরের ৬টি উপায় ভালো করে পড়েন তাহলে বুঝতে পারবেন কিভাবে মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করা যায়। শুধু মোবাইলে নয় আপনি চাইলে এই পদ্ধতি গুলো কম্পিউটার বা ল্যাপটপের মাধ্যমেও প্রয়োগ করতে পারবেন। আধুনিক যুগে এখন স্মার্ট ফোনের চাহিদা যেমন বেড়ে চলেছে তেমনই এর ব্যবহারের সুবিধা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আমার দেওয়া এই ৬টি উপায় আপনি ঘরে বসে মোবাইলে অনলাইনে আয়  করতে পারবেন। মোবাইলে মানুষ প্রচুর সময় নষ্ট করে থাকে তাই যারা বুদ্ধিমান তারা সময় নষ্ট না করে অর্থ উপার্জনের সুযোগ তৈরি করে নেয়। আর্টিকেলটি পড়ে যদি ভালো লাগে কমেন্ট করে শেয়ার করবেন আপনার বন্ধুর সাথে। ধন্যবাদ !!

Leave a Comment