ছবি-এডিট-করার-apps

মোবাইল দিয়ে ছবি এডিট করার দুর্দান্ত ৭টি Apps

ছবি এডিট করার Apps-গুলোর প্রতি দিন দিন সবাই আগ্রহী হয়ে উঠছে। নিজেকে সুন্দর ভাবে দেখানুর জন্য নানা ভাবে মানুষ নিজের সুন্দর্য প্রকাশ করে থাকে। এখন অনেকে মোবাইল ক্রয় করতে গেলে প্রথমে ক্যামেরার দিকে নজর দেয়, ক্যামেরাটি কেমন? ছবি সুন্দর হবে কি না ইত্যাদি। কিন্তু যারা ভালো ক্যামেরার ফোন কিনতে না পারে তাদের ফটো যে আকর্ষনীয় হবে না এটা ভাবার কোনো কারণ নেই।

বর্তমানে সাধারণ যেকোনো মোবাইলে ছবি তুলে Apps-দিয়ে এডিটিং করে ইমেজ আকর্ষনীয় করা যায়। আপনার মোবাইলের র‍্যাম যদি কম থাকে তাহলে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে নিজের ফটো এডিট করতে পারবেন। আমি আজকে ভালো মানের কয়েকটি ছবি এডিট করার Apps-নিয়ে আলোচনা করবো যেগুলো দিয়ে খুব সহজেই কম্পিউটার ছাড়া মোবাইলের মাধ্যমে ফটো এডিটিং করতে পারবেন।

ছবি এডিট করার apps

আপনি যদি বিভিন্ন সফটওয়্যার (Software)-ব্যবহার করার নিয়ম জেনে থাকেন তাহলে ছবি এডিট করার Apps-গুলোও খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন। কারণ অনেকে এপস ডাউনলোড করে মোবাইলে ভালো মতো ফটো এডিট করতে পারে না। ফলে তারা বলে থাকে মোবাইলে ছবি সুন্দর করে এডিটিং করা যায় না। কম্পিউটার সফটওয়্যারগুলোর মতো এন্ড্রয়েড ফোনের এপসগুলো ব্যবহার করা অনেক সহজ।

বর্তমানে এমন কিছু অ্যাপস বের হয়েছে যেগুলো দিয়ে ছবি এডিট করার দরকার হয় না বরং সরাসরি ক্যামেরার মাধ্যমে সুন্দর ফটো তোলা যায়। গুগল প্লে স্টোরে আপনি অনেক ধরণের (Apps)-পাবেন যেগুলো দিয়ে সুন্দর সেলফি তোলা যায়।

অন্যদিকে কিছু এপস রয়েছে যেগুলো প্রিমিয়াম অর্থাৎ ডলার দিয়ে ক্রয় করতে হয়। এর জন্য আপনার চিন্তা করার কোনো কারণ নেই, প্রিমিয়াম এপসগুলো কিভাবে ফ্রিতে ডাউনলোড (Download)-করা যায় সেটাও জানতে পারবেন এখানে।

মোবাইল দিয়ে কি ছবি এডিট করা যাবে?

হ্যাঁ! আপনি যেকোনো এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে ফটো এডিটিং (Photo Editing)-কাজ করতে পারবেন। আপনার মোবাইল যদি কম দামি অথবা বেশি হ্যাং করে থাকে তাহলেও আপনি ছবি এডিট করতে পারবেন।

ইন্টারনেটে অনেক ধরণের ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে ইমেজ রিসাইজ এন্ড এডিটিং করা যায়। আপনি যদি ছবির মধ্যে লেখালেখি করে ফেসবুকে আপলোড করতে চান সেটাও করতে পারবেন বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

মোবাইলে ছবি এডিট করার ভালো Apps-আছে কি না?

অবশ্যই! গুগল প্লে স্টোরে ফটো এডিটিং করার নানা ধরণের অ্যাপস রয়েছে। সবচেয়ে ভালো ও সহজ ভাবে ইমেজ এডিটিং (Image Editing)-করেত পারবেন মোবাইলে (Apps)-ডাউনলোড করে।

বর্তমানে গুগল প্লে স্টোরে ইমেজ এডিটিং করার যে এপসগুলো পাওয়া যায় সেগুলোর মাধ্যমে ফটো এডিট করলে কম্পিউটারের আর দরকার হয় না বলে আমি মনে করি।

আপনি যেকোনো ইমেজের ব্যাকগ্রাউন্ড চ্যাঞ্জ ও বিভিন্ন পোস্টার ডিজাইন করতে পারবেন খুব সহজেই। এছাড়া ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ডিএসএলআর (DSLR)-ক্যামেরার মতো ব্লার করতে পারবেন।

যারা ছবিতে বিভিন্ন ধরণের ইফেক্ট ব্যবহার করতে পছন্দ করেন তারা সেটাও করতে পারবেন।

PicsArt Photo Editor-দিয়ে ছবি এডিট

মোবাইল ফোন দিয়ে ফটো এডিটিং করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় এপস (Apps)-এটা। এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ধরণের কাজ করতে পারবেন, ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড চেঞ্জ করা থেকে শুরু করে সুন্দর ইফেক্ট ও থ্রিডি টেক্সট (3D Text)-লেখতে পারবেন। এবং যারা চুলের কালার চেঞ্জ করতে চান তারা এই সফটওয়্যার দিয়ে করতে পারবেন।

এই এপসটি আপনি আরো বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করতে পারবেন এবং কোনো ইফেক্ট (Effect)-বা অন্যকিছু দরকার হলে অ্যাপের মাধ্যমে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এই সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করার দিক দিয়ে ২০১৯ সালে সারা বিশ্বের মধ্যে ১৪ তম স্থান দখল করে নিয়েছিল।

তাহলে ভাবুন এটা কত ভালো মানের একটা এপস? এছাড়া এই এপসটি দুটি ভার্সনে পাওয়া যাবে একটি ফ্রি ও অন্যটি পেইড যা ডলার দিয়ে ক্রয় করতে হবে।

Snapseed-দিয়ে ছবি এডিট

আপনি যদি ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন তাহলে হয়তো অবশ্যই গুগলের নাম শুনেছেন। গুগল একটি বিশাল বড় কোম্পানি যারা ইন্টারনেটে বিভিন্ন সার্ভিস দিয়ে থাকে।

এই এপসটিও গুগলের একটি পণ্য যার মাধ্যমে যেকোনো ছবির কালার (Photo color)-পরিবর্তন করা যায় ও দুটি ফটো একসাথে জোড়া লাগানো যায়।

শুধু তাই নয় আপনি আরো বিভিন্ন কাজ করতে পারবেন এই এপের মাধ্যমে। কোনো ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড যদি ব্লার (Blur)-করতে চান তাহলে সেটাও করতে পারবেন খুব সহজে। এটা খুবই দারুন একটি সফটওয়্যার এটার মধ্যে অনেক সুন্দর সুন্দর ইফেক্ট পাবেন।

YouCam Makeup-দিয়ে ছবি এডিট

গুগল প্লে স্টোরে ছবি এডিট করার (Apps)-গুলোর মধ্যে জনপ্রিয় এপস এটা। এই অ্যাপসটি শুধু ফটো এডিটিং কাজেই ব্যবহার করা যায় না বরং এটা দিয়ে মূহুর্তের মধ্যে সুন্দর সেলফি তুলতে পারবেন। অ্যাপটি দ্বারা ঠোঁটে লিপস্টিক লাগাতে পারবেন ও ত্বক মসৃণ করা যাবে।

এছাড়া আপনি আরো নানা ধরণের এডিট (Edit)-করতে পারবেন সফটওয়্যারটি দ্বারা। এছাড়া এপটি ফ্রি ব্যবহার করার পাশাপশি প্রিমিয়াম ব্যবহার করতে পারবেন ডলার প্রদান করে। ডলার দিয়ে ক্রয় করলে আরো বিভিন্ন ধরণের সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

Photo Lab Picture Editor-দিয়ে ছবি এডিট

পিকচার এডিট করার জন্য অসাধারণ একটি এপস যা লক্ষ লক্ষ মানুষ ব্যবহার করে থাকে। এই এপের মাধ্যমে পিকচার স্টাইলিশ করা যায় ও নানা ধরণের ইফেক্ট ব্যবহার করার জন্য সবচেয়ে ভালো কালেকশন রয়েছে। আপনি এই অ্যাপ দিয়ে ইমেজ এডিট (Image Edit)-করে মোবাইলে ওয়ালপেপার হিসাবে সেট করতে পারবেন।

যাদের মুখে অনেক ব্রন আছে তারা (Apps)-টি দিয়ে এডিট করে মুছে ফেলতে পারবেন। এছাড়া এই অ্যাপস সেলফি তোলার জন্য খুব এক্সপার্ট এবং ইমেজের মধ্যে ফ্রেম ব্যবহার করে আরো সুন্দর করে তুলতে পারবেন। এছাড়া পিকচার (Picture)-কার্টুনের মতো করা যাবে ও প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন জায়গার কালার চেঞ্জ করতে পারবেন।

PhotoDirector-দিয়ে ছবি এডিট

যেকোনো ফটো কার্টুনের মতো করার জন্য এই এপটি অনেক ভালো এবং এটা দিয়ে ইমেজ অ্যানিমেশনও করা যায়।

অ্যাপটির রেটিং দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় খুব দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে যায়। এই এপের ব্যবহার খুব সহজ এবং এর মাধ্যমে ভালো মানের সুন্দর সেলফি তুলতে পারবেন। বিভিন্ন ধরণের ইফেক্ট ব্যবহার করতে পারবেন ও এইচডিআর ফটো (HDR Photo)-তৈরি করতে পারেবন।

এছাড়া ইমেজের মধ্যে বিভিন্ন রকমের স্টিকার লাগাতে পারবেন ও কাস্টম স্টিকার ব্যবহার করতে পারবেন। কোনো ইমেজ যদি আরো আকর্ষনীয় করার দরকার হয় তাহলে বিভিন্ন ফিল্টার, ফ্রেম ও শ্যাডো (Shadow)-যুক্ত করতে পারবেন।

Adobe Photoshop Express-দিয়ে ছবি এডিট

এই এপসটির নাম শুনে আপনি হয়তো একটু অবাক হলেন, হয়তো আপনি ভাবছেন এটাতো কম্পিউটারের এপস (Apps)। কিন্তু না, মোবাইলের জন্য এই সফটওয়্যারটি তৈরি করা হয়েছে আর এটা পাওয়া যাবে গুগল প্লে স্টোরে।

বর্তমানে লক্ষ লক্ষ মানুষ এপসটি ব্যবহার করে থাকে এবং এটা দিয়ে খুব ভালো ফটো এডিটিং করা যায়। আপনি যদি কোনো আর্ট বোর্ডের কালার বিভিন্ন ভাবে দেখতে চান তাহলে এই অ্যাপ দ্বারা গ্রেডিয়েন্ট কালার (Gradient color)-তৈরি করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি চাইলে দুটি ইমেজ একসাথে সংযুক্ত করতে পারবেন। অন্যদিকে আপনি ইমেজের ব্যাকগ্রাউন্ড কালার চেঞ্জ করাসহ ফটো মসৃণ করে তুলতে পারবেন খুব সহজেই।

Photo Editor Pro-দিয়ে ছবি এডিট

মোবাইল দিয়ে ছবি এডিট করার জন্য এটা খুব চমৎকার একটি এপস (Apps)। গুগল প্লে স্টোরে ভিজিট করলে জনপ্রিয় ছবি এডিট করার এপসগুলোর মধ্যে এই অ্যাপসটি পাবেন এবং এটার রেটিং খুব ভালো।

ছবিতে বিভিন্ন স্টিকার ও ইফেক্ট ব্যবহার করাসহ নানা ধরণের ফ্রেম যুক্ত করতে পারবেন। কোনো ফটোর ব্রাইটনেস (Brightness)-যদি কম থাকে তাহলে এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে ফটো এডজাস্ট করাসহ সহজেই আলো বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

এছাড়া ইমেজের মধ্যে বিভিন্ন অংকন করতে পারবেন। অন্যান্য অ্যাপের মতো এই অ্যাপের মাধ্যমে ইমেজের কালার সাদা-কালো করতে পারবেন এবং আরো বিভিন্ন কালার ব্যবহার করার সুযোগ আছে।

প্রিমিয়াম এপস ফ্রি ডাউনলোড করার উপায়

মোবাইলে এপস ডাউনলোড করার জন্য মানুষ গুগল প্লে স্টোরে (Google Play Store)-বেশি ভিজিট করে থাকে। কিন্তু সেখানে সব অ্যাপস ফ্রি পাওয়া যায় না, কিছু অ্যাপস রয়েছে যেগুলো টাকা দিয়ে ক্রয় করতে বলা হয়। আর এই প্রিমিয়াম এপসগুলো টাকা দিয়ে ক্রয় করার মতো সামর্থ সবার কিন্তু নেই।

তাই যারা টাকা দিয়ে এপস ক্রয় করতে না পারবে তাদের জন্য একটি সুযোগ রয়েছে যার মাধ্যমে যেকোনো এপস, গেমস বিনামূল্যে সংগ্রহ করতে পারবেন।

আর সেই অ্যাপের নাম হচ্ছে “Blackmart“। এই এপসটি আপনি ডাউনলোড করে মোবাইলে ইন্সটল করে নিলে খুব সহজেই যেকোনো অ্যাপস ও গেম বিনামূল্যে সংগ্রহ করতে পারবেন।

শেষ কথা,

আপনি যদি মোবাইল দিয়ে ছবি এডিট করতে চান তাহলে আপনার জন্য এই অ্যাপগুলোই যথেষ্ট। কারণ এই এপসগুলোর মধ্যে আপনি সব ধরণের কাজ করতে পারবেন। এছাড়া আপনি যদি আরো এপস ডাউনলোড (Apps Download)-করতে চান তাহলে সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট গুগল প্লে স্টোর থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন।

Leave a Comment