ওয়াইফাই-হ্যাক-সফটওয়্যার

ওয়াইফাই হ্যাক করার সফটওয়্যার ও হ্যাকিং নিয়ে কিছু অজানা তথ্য

আজকে ওয়াইফাই হ্যাক ও ওয়াইফাই হ্যাক করার সফটওয়্যার সম্পর্কে কিছু তথ্য আপনাদের কাছে শেয়ার করব। ওয়াইফাই কিভাবে হ্যাক করে ও WiFi-Hack-করা কতটা সম্ভব ইত্যাদি। শুরুতেই বলে রাখি যারা ওয়াইফাই হ্যাকিং শিখতে আসছেন তাদের জন্য এই ব্লগটি কোনো কাজে নাও দিতে পারে। এই আর্টিকেলে আমি ওয়াইফাই হ্যাকিং দেখাবো না তবে ওয়াইফাই সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য আপনাদের মাঝে তুলে ধরব।

আচ্ছা আদৌ কি ওয়াইফাই হ্যাক করা যায়? এবং গেলেও কিভাবে করা যায় আর যদি না করা যায় তবে কেন করা যায় না সেই বিষয়গুলো আপনাদের বোঝানোর চেষ্টা করা হবে। এছাড়া ওয়াইফাই হ্যাক করার সফটওয়্যার যদি থাকে সেটাও আলোচনা করব।

শুরুতেই আপনাদের একটা সতর্ক করে দিয়ে রাখি গুগল প্লে স্টোরে আপনারা অনেকেই সার্চ করে দেখবেন যে ওয়াইফাই হ্যাক করার জন্য অনেক সফটওয়্যার রয়েছে। যা অনেকে ভেবে থাকেন এগুলো দিয়ে আপনারা কাজ করতে পারবেন এবং অনেকে ডাউনলোড করে সেগুলো দিয়ে চেষ্টা করে কিন্তু হয় না। এর কারণ হচ্ছে এগুলো আসলে ভুয়া এবং এগুলো দিয়ে কোনো কাজ হয় না, এরা শুধু টাকা ইনকাম করার জন্য এই সফটওয়্যারগুলো তৈরি করেছে।

এইসব ভুয়া অ্যাপসগুলোর কারণে আপনার বিভিন্ন ধরণের ক্ষতি হতে পারে ও আপনার ডিভাইসের সিকিউরিটি ভেঙ্গে যেতে সম্ভাবনা রয়েছে। তাই দয়া করে এই অ্যাপগুলো ইন্সটল করবেন না এগুলোতে অনেক সময় ভাইরাস থাকতে পারে ও বিভিন্ন ধরণের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এইসব হ্যাকিং এপসগুলো ব্যবহার না করাই ভালো কারণ এগুলো দিয়ে আদৌ হ্যাক করা সম্ভব হয়নি। তাহলে চলুন জেনে নেই আসলেই হ্যাকিং করা সম্ভব কি না।

ওয়াইফাই হ্যাক করার উপায়

আসলে ওয়াইফাই হ্যাক করা যায় না বিষয়টা তা নয়, কিন্তু ওয়াইফাই হ্যাকিং করার জন্য প্রয়োজন হাই লেভেলের হ্যাকার। আপনি যদি একজন এক্সপার্ট লেভেলের হ্যাকার হয়ে থাকেন তাহলে ওয়াইফাই হ্যাকিং করা আপনার জন্য খুবই সহজ। সেক্ষেত্রেও অনেক ঝামেলা আছে সেগুলো নিয়ে আমরা পরে কথা বলব।

এখন অনেকেই বলতে পারেন আমার বন্ধু ওয়াইফাই হ্যাক করে ফেলেছে এক মিনিটের মধ্যে এবং কোনো এক্সপার্ট হ্যাকিং নলেজ ছাড়াই। এটা কেন হয়? কিভাবে করা যায়? সেটা এখন বলছি, তার আগে আপনাকে ওয়াইফাই সিকিউরিটি গুলো বুঝতে হবে।

প্রাথমিক ভাবে ওয়াইফাইর যে সিকিউরিটি ছিলো সেটা হচ্ছে WEP-যেটা অনেক নরমাল ছিল যার কারণে ফ্রি সফটওয়্যার দিয়েও হ্যাক করা যেত। এর পরে যেটায় WPA-WPA2-এই নামের সিকিউরিটি গুলো থাকে সেগুলো কিন্তু হ্যাক করা যায় না কারণ এগুলোর সিকিউরিটি লক অনেক হার্ড থাকে একদমি অনেক কঠিন কিন্তু আপনি যদি হ্যাক করেও থাকেন তাহলে পাসওয়ার্ড বের করতে পারবেন না শুধু মোবাইলে কানেক্ট থাকবে।

আপনি যদি গুগল প্লে স্টোরের ওয়াইফাই হ্যাক করার সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে চান বা এর মাধ্যমে হ্যাক করার চেষ্টা করতে চান তাহলে এই সাইটে আমি আরো কয়েকটি আর্টিকেল লিখেছি সেগুলো দেখে আসতে পারেন।

আরো পড়ুন-

কিভাবে আপনার বন্ধু সহজেই ওয়াইফাই হ্যাক করেছে?

সেটা হচ্ছে যে ভিকটিম আছে সেই ভিকটিমের রাউটারে যদি কোনো উইটনেস থাকে একটা উইটনেস হচ্ছে WPS-এটা প্রত্যেক রাউটারের মধ্যে এনাবল করা থাকে, এটার উদ্দেশ্যটা হচ্ছে আপনি যদি কোনো বন্ধুকে আপনার রাউটারে সংযোগ করতে চান কিন্তু ওয়াইফাইর যে প্রকৃত পাসওয়ার্ড আছে সেটা বলতে চাচ্ছেন না। তাহলে কিভাবে সংযোগ করা যায় এটার জন্যই হচ্ছে WPS।

wifi-hack-করার-সহজ-উপায়

WPS-এর কীটা রাউটারের পেছনে লেখা থাকে যেটা দিয়ে আপনার বন্ধুকে ওয়াইফাই সংযুগ দিতে পারবেন কোনো পাসওয়ার্ড না জানিয়ে। আবার রাউটারের পেছনে একটা বাটন আছে যেটাকে WPS-বাটন বলা হয়। এটা আপনি চেপে দিলেও কাউকে কানেক্ট করতে পারেন পাসওয়ার্ড না জানিয়ে।

WPS-কীটা এক থেকে সাত বা আট ডিজিটের মধ্যে হয়ে থাকে যেটা রাউটারের পেছনে দেওয়া থাকে এবং আপনি যদি রাউটারটি একটু উল্টা করেন তাহলেই দেখতে পারবেন।

এখন একটা Brute-Force-নামের অ্যাটাক আছে যেটার মধ্যমে পাসওয়ার্ড হ্যাক করা যায় এটাকে ডিকশনারি অ্যাটাকও বলা হয়। এর কাজটা হচ্ছে ১-৭ টা ডিজিটের মধ্যে হাজার হাজার key-থাকে, সে প্রত্যেকটা key-ডিজিট এক এক করে চেষ্টা করবে।

এখন আপনি ভেবে দেখুন ১-৭ পর্যন্ত কতগুলো ডিজিটের সমাহার হতে পারে এবং সবগুলো চেষ্টা করতে সাধারণ ভাবে যে কম্পিউটারগুলো ব্যাবহার করা হয় সেগুলো দিয়ে সম্ভব হবে কি না এবং কতটা সময় লাগতে পারে সেটা আমার অজানা তাই Brute-Force-দিয়েও সম্ভব না।

সুতরাং আপনার ভাগ্য যদি ভালো থাকে এবং তার সিকিউরিটি পিনকোড যদি ছোট হয় তাহলে আপনি Brute-Force-এর মাধ্যমে ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড পেয়ে যেতে পারেন তবে সময় কতটা লাগবে সেটা অজানা।

তাই আমি আপনাদের বলতে চাই যারা ইউটিউব এবং গুগলে সার্চ করছেন, কিভাবে ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড হ্যাক করব? এভাবে WiFi-Hacking-এর পদ্ধতি বের করে WiFi-Hack-করা সম্ভব না। তাই আমি আপনাকে বলব সময়টা এইসব খারাপ কাজে ব্যবহার না করাই ভালো, কারণ ওয়াইফাই হ্যাক করতে পারবেন না এভাবে। যদি ওয়াইফাই হ্যাকিং নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ!

Leave a Comment